শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯

আজ শুক্রবার থেকেই বিশেষ ট্রেন আম পরিবহনে

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আমসহ কৃষিপণ্য সরবরাহে চালু হলো ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন’। বহুদিন ধরে দাবি ছিল চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী-ঢাকা রুটে এই ট্রেন চালুর। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমসহ কৃষিপণ্য সরবরাহে প্রয়োজনীয় ট্রাক-লরি না পাওয়ায় চালু করা হলো এই স্পেশাল ট্রেন।

আজ শুক্রবার থেকে স্পেশাল এই ট্রেন চলাচল করবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী-ঢাকা রুটে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজশাহী স্টেশনে সংবাদ সম্মেলন করে ট্রেনটির ভাড়া ও চলাচলের বিস্তারিত তুলে ধরেন পশ্চিম রেলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ফুয়াদ হোসেন আনন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার আব্দুল করিমসহ অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন’ আজ বিকেলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করবে। ১ ও ২ নামের ট্রেন দুটি সপ্তাহে সাত দিনই এই রুটে আম-সবজিসহ পণ্যসামগ্রী নিয়ে যাতায়াত করবে। স্টেশনের দূরত্ব ভেদে ভাড়া পড়বে সর্বনিম্ন ১ টাকা ১০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১ টাকা ৩০ পয়সা।

এদিকে এবার গত বছরের চেয়ে আমের উৎপাদন কম হবে বলে জানান চাষিরা। ফলে করোনা দুর্যোগে আমের দাম নিয়ে খুশি চাষিরা। গত ৩১ মের পর থেকে প্রতিদিনই বাড়ছে আমের দাম। চাষিরা বলছেন, এবার বৈরী আবহাওয়ার সঙ্গে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সে কারণে আমের রং এবার প্রত্যাশিত হবে না। পাশাপাশি উৎপাদনও কম হবে। 

গতকাল রাজশাহী রেলস্টেশনে আয়োজন করা সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন থেকে ঢাকার কমলাপুর স্টেশন পর্যন্ত প্রতি কেজি পণ্য পাঠাতে খরচ পড়বে ১ টাকা ৩০ পয়সা। আর রাজশাহী স্টেশন থেকে খরচ পড়বে ১ টাকা ১৭ পয়সা। এর মধ্যে পণ্য নামানো যাবে টাঙ্গাইল, মির্জাপুর, মৌচাক, জয়দেবপুর, টঙ্গী, বিমানবন্দর ও তেজগাঁও স্টেশনে। আর রোহনপুর আমনুরা, সিতলাই, সরদহ রোড, আড়ানী, আব্দুলপুর স্টেশন থেকেও ঢাকার উদ্দেশে পণ্য পরিবহন করা যাবে।

একই ভাড়ায় ঢাকা থেকে পণ্য রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে নিয়ে আসা যাবে। এর মাঝে টাঙ্গাইল, মির্জাপুর, মৌচাক, জয়দেবপুর, টঙ্গী, বিমানবন্দর ও তেজগাঁও স্টেশন থেকে পণ্য রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে আনা যাবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন থেকে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ২ ট্রেন’ প্রতিদিন বিকেল ৪টায় ছেড়ে যাবে। রাজশাহী স্টেশনে পৌঁছবে ৫টা ২০ মিনিটে। ৩০ মিনিট যাত্রাবিরতির পর ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে ৫টা ৫০ মিনিটে। ট্রেনটি ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে পৌঁছাবে রাত ১টায়।

এদিকে ঢাকার কমলাপুর স্টেশন থেকে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ১ ট্রেন’টি রাত ২টা ১৫ মিনিটে চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশনের উদ্দেশে রওনা দেবে। ট্রেনটি রাজশাহী স্টেশনে পৌঁছবে সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে। ২০ মিনিট যাত্রাবিরতির পর ৮টা ৫৫ মিনিটে চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে।

ট্রেন দুটিতে মোট ছয়টি বগি থাকবে। প্রতি বগিতে সর্বোচ্চ ৪৫ হাজার কেজি পণ্য পরিবহন করা যাবে।

পবা উপজেলার দামকুড়া এলাকার মকছেদ আলী বলেন, অন্য বছর যে গাছে ৩০ মণ আম ছিল, এবার সেখানে হচ্ছে বড়জোর ২০ মণ। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে আমের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ফলে উৎপাদন কম হবে। তবে দাম ভালো এবার।

আরেক আম চাষি দুর্গাপুরের হযরত আলী বলেন, ‘এবার অনেক আম ঝড়ে পড়ে গেছে। এ কারণে উৎপাদন কম হচ্ছে। তবে দাম ভালো পাওয়া যাচ্ছে। এখন প্রতি মণ গোপাল বিক্রি হচ্ছে দুই হাজার টাকা দরে। আবার খিরসাপাত বিক্রি হচ্ছে এক হাজার ৭০০ থেকে এক হাজার ৮০০ টাকা মণ।’