মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

এবার লকডাউন শিথিল করল ভিক্টোরিয়া

এবার লকডাউন শিথিল করেছে অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জনবহুল অঙ্গরাজ্য ভিক্টোরিয়া। এর আগে দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস অঙ্গরাজ্যে লকডাউন শিথিলের ঘোষণা দেওয়া হয়।

সোমবার থেকে ভিক্টোরিয়ায় বিভিন্ন কড়াকড়ি শিথিল করা হয়েছে। যেমন, আশেপাশের লোকজনের বাড়িতে যাওয়া, ধর্মীয় অনুষ্ঠানে একত্রিত হওয়া, একসঙ্গে খেলা-ধুলায় অংশ নেওয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে আগে নিষেধাজ্ঞা ছিল। এখন এসব ক্ষেত্রে কড়াকড়ি একেবারে তুলে না নেওয়া হলেও অনেকটা শিথিল করা হয়েছে।

প্রাণঘাতী করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করায় অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। ভিক্টোরিয়ার মেয়র ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রিউ বলেন, মঙ্গলবার থেকে ৬৩ লাখ জনসংখ্যার রাজ্য ভিক্টোরিয়ার লোকজন বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পাবে। একসঙ্গে পাঁচজন সমবেত হতে পারবে।

অপরদিকে, যে কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে ১০ জন অংশ নিতে পারবে। প্রায় দু’মাস ধরে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে লকডাউন জারি ছিল এবং দেশটির সীমান্তও বন্ধ রাখা হয়েছে। করোনার বিস্তাররোধ করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তবে মেয়র সতর্ক করে বলেছেন, লকডাউন শিথিল করার মানে এই নয় যে, বাড়ি বাড়িতে নৈশভোজের আয়োজন করা যাবে এবং লোকজনকে আমন্ত্রণ দেওয়া হবে। তিনি বলেন, আমাদেরকে নিজেদের বিবেক, বুদ্ধি কাজে লাগাতে হবে।

এদিকে, আগামী শুক্রবার থেকেই লকডাউন শিথিল হচ্ছে নিউ সাউথ ওয়েলসে। রোববার ওই অঙ্গরাজ্যের মেয়র গ্লাডিস বেরেজিকলিয়ান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, আমরা লকডাউন শিথিল করছি তার মানে এই নয় যে, ভাইরাসের ঝুঁকি কমে গেছে বা ভাইরাস আর প্রাণঘাতী নয়। বরং আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি বলেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামী ১৫ মে থেকে রেস্টুরেন্ট, ক্যাফে খুলে দেওয়া হবে এবং একে অন্যের বাড়িতে যাওয়ার অনুমতি পাবেন। বাইরে একসঙ্গে ১০ জন সমবেত হতে পারবেন এবং যে কারো বাসায় পাঁচজন বেরাতে যেতে পারবেন।

আগামী শুক্রবার থেকেই বিভিন্ন প্রার্থনার স্থান খুলে দেওয়া হবে। এছাড়া আগে বিয়ের অনুষ্ঠানে মাত্র দু’জন অতিথি উপস্থিত থাকতে পারত। এখন একসঙ্গে ১০ জন অতিথি অংশ নিতে পারবেন। অপরদিকে শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে ২০ জন সমবেত হতে পারবেন। সোমবার থেকেই সেখানকার সব স্কুল খুলে যাচ্ছে।