বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯

গাজীপুরে কাজে যোগ দিলেন শ্রমিক করোনা নিয়েই

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার এক দম্পতির নমুনায় করোনা পজিটিভ এসেছে বুধবার (৩ জুন)। কিন্তু রাতে এ রিপোর্ট হওয়ার আগেই বিকেলে স্ত্রী-সন্তানকে রেখে গাজীপুর চলে এসেছেন আক্রান্ত ব্যক্তি।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) তিনি গাজীপুরের কোনাবাড়িতে পোশাক কারখানায় কাজে যোগও দিয়েছেন। পরে বিকেলে জানতে পেরেছেন তিনি করোনা পজিটিভ।

মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, ঈদ করতে তিনি স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে গাজীপুর থেকে রাজশাহীর বাগমারা মাড়িয়া কড়খণ্ডগ্রামে শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে ছিলেন। তারপর স্বাস্থ্যকর্মী তাদের নমুনা সংগ্রহ করেন। এরপর গ্রামের লোকজন তাদের বলে ‘রিপোর্ট ভালো’। বাড়ি থেকে বের হতে পারবেন। তাই স্ত্রীকে রেখেই তিনি গাজীপুরে চলে এসেছেন।

তিনি আরও জানান, বুধবার তিনি বাগমারা থেকে রাজশাহী শহরে এসেছেন। এরপর একটি বাসে চড়ে গাজীপুর এসেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি কাজেও যোগ দেন। পরে বাগমারা উপজেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা তাকে ফোনে করোনা পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি জানান।

পরে ওই কর্মকর্তা তার কারখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও কথা বলেন। এর পর দুপুরে কারখানা কর্তৃপক্ষ তাকে ছুটি দিয়ে দেয়। বর্তমানে তিনি গাজীপুরে ভাড়া বাড়িতেই আছেন এবং সুস্থ আছেন। এখন পর্যন্ত তার শরীরে কোনো উপসর্গ নেই বলেও জানান তিনি।

গত ৩০ মে এ দম্পতি এবং তাদের ১০ বছরের এক ছেলের নমুনা সংগ্রহ করা হয় এবং করোনা পরীক্ষার জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে পাঠানো হয়।

বুধবার রাতে এ দম্পতির নমুনায় করোনা পজিটিভ আসে। তবে তাদের সন্তানের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নেতৃত্বে প্রশাসনের লোকজন আক্রান্ত দম্পতির বাড়ি লকডাউন করতে যান। কিন্তু তারা গিয়ে দেখেন, বাড়িতে স্ত্রী-সন্তান রেখে করোনা সংক্রমিত ব্যক্তি গাজীপুরে গেছেন। চাকরিতেও যোগ দিয়েছেন।

বাগমারার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরীফ আহমেদ বলেন, ওই ব্যক্তির করোনা পজিটিভ হওয়ার খবর এরইমধ্যে কারখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তারা আক্রান্ত ব্যক্তিকে ছুটি দিয়ে দিয়েছেন এবং অন্য শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছেন। আর করোনা পজিটিভ রোগী ও তার স্ত্রীর সংস্পর্শে আসা ১০ বছরের শিশুসন্তান ও দাদিকে আইসোলেশনে রয়েছেন।