শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

টাংগাইল জেলা প্রশাসকের কাছে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানের খোলা চিঠি

।। #খোলা_চিঠি ।। #মাননীয়_জেলা_প্রশাসক_টাঙ্গাইল

আপনি নিশ্চয়ই অবগত আছেন যে, স্বাধীনতার ইতিহাস ঐতিহ্যমন্ডিত ঘেরা টাঙ্গাইলের সখিপুরের বহেড়াতৈল নামক জায়গাটির সাথে । যেখানে ১৯৭১ সালের ১০ই জুন কাদেরিয়া বাহিনীর হাজার হাজার মুক্তিকামী ছাত্র,যুবক,শ্রমিক এই পবিত্র মাটিতে, পবিত্র কুরআন শরীফ,গীতা ছুয়ে শপথ বাক্যপাঠ করেছিলেন এই বলে, “যতদিন এই মাতৃভূমিকে পাকহানাদার থেকে মুক্ত করতে না পারবো, কেউ ঘরে ফিরে যাব না”।
পাহাড়ের লাল মাটির সাথে তাদের, হাসি কান্না দুঃখ বেদনার স্মৃতি মিশে আছে। সেইসব বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে সেখানে দাঁড়িয়ে আছে স্মৃতিস্তম্ভ, নতুন প্রজন্মের দেশ কে ভালোবাসার অনুপ্রেরণা যোগায় এই পবিত্র জায়গাটি। কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয় আজ সেই জায়গাতে একটি ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণ করার কাজ চলছে। কিভাবে সম্ভব সেই স্মৃতিস্তম্ভ কে পেছনে ফেলে এই ভবন নির্মাণের কাজ। বহেড়াতৈলে কি জায়গার অভাব?
বর্তমান প্রজন্মের অকুতোভয় মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা এই ভবন নির্মাণের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। বাংলাদেশ তথা টাঙ্গাইল জেলা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী জনগণকে সাথে নিয়ে নিয়ে জোরালো প্রতিবাদে যেতে বাধ্য হব। কাদেরিয়া বাহিনীর শপথ বাক্যপাঠ অনুষ্ঠানের স্মৃতিস্তম্ভের পাশে কোনো স্থাপনা অামরা হতে দিবো না এবং স্বাধীনতার ইতিহাস মন্ডিত ঐতিহ্যকে নষ্ট হতে দেবো না।

অতএব,বর্তমানে আপনি টাঙ্গাইল জেলা এবং উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের দায়িত্বে অাছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়। তাই আপনার নিকট উক্ত বিষয়টি আশু সমাধানের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করছি।

টাংগাইল জেলার সকল মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের পক্ষে,
সহঃঅধ্যাপক রেজাউল করিম