শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮

দরপত্র ছাড়াই এ.আর.এ জুট মিল লিঃ বিক্রি,কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি।

মোস্তাফিজুর রহমান,সরিষাবাড়ী প্রতিনিধিঃ জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভার প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত এ.আর.এ জুট মিল লিঃ দরপত্র ছাড়াই রাতের আধারে বিক্রি করায় সরকার শত কোটি টাকা রাজস্ব বঞ্চিত হয়েছে বলে জুটমিল কর্মকর্তা, কর্মচারী,ব্যবসায়ী,শ্রমিক ও সচেতন মহলের হাজারও অভিযোগ।এ.আর.এ জুট মিল লিঃ এর কর্মকর্তা-কর্মচারী,ব্যবসায়ী,শ্রমিক সূত্রে জানা যায়, উক্ত মিলটির অভ্যন্তরে ২৮০ জন শ্রমিক,৪০ জন স্টাফ,১০৮৪ স্প্রিন্ডল,১১০০ মে.ট্রন উৎপাদন সম্পন্ন (৩ শিফট),র-জুট ২টি,ফিনিস গুডস গোডাউন ২টি,ফ্যাক্টরি এরিয়া ল্যান্ড ১৬.০৬ এরিয়াস,পাওয়ার হাউস ১টি,ওয়ার্কসপ-১টি,পিন সপ ১টি,কোয়ালিটি কন্ট্রোল ১টি,মিল স্টোর ৪টি,বাংলো ১টি,জি.এম বাংলো ১ টি,পি.এম কোর্য়াটার ১টি,ইঞ্জিনিয়ার কোর্য়াটার ১টি,জুট পার্সার ১টি,মসজিদ ১টিসহ মূল্যবান বৃক্ষ বিদ্যমান আছে।এছাড়া মেশিনারী এর মধ্যে ইমুলসিয়ন মেশিন ১ (এক)এনওএস,সফটনার মেশিন,ট্রেসার কার্ড মেশিন,ব্রেকার কার্ড মেশিন ২টি,ফিনিসার কার্ড মেশিন ৩টি,ফাস্ট ড্রয়িং ফ্রেম ৩টি,সেকেন্ড ড্রয়িং ফ্রেম,তৃতীয় ড্রয়িং ফ্রেম,স্পিনিং ফ্রেম ১২টি (৯৬০ স্প্রিনডলস),প্রেসিশন মেশিন ৬টি (৫৬ স্প্রিনডলস),রোল ওয়েন্ডিং মেশিন ২টি,টুইস্ট মেশিন ৩টি(২৪ স্প্রিনডলস প্রতি মেশিন),রেলিং মেশিন ১,রাবার গ্রান্ডিং মেশিন ১, গ্রান্ডিং মেশিন ১,লেথ মেশিন ২,ওয়েল্ডিং মেশিন ১,স্পিনিং ফ্রেম ২ ( কনভার্ট টুইস্ট মেশিন ৭২ স্প্রিন্ডল প্রতি মেশিন,জেনারেটর (৩১৫ কেভিএ)১,ডাস্ট সাকার মেশিন ১,ব্রেকিং স্টেন্থ টেস্টার ১,ব্যালেন্স ১,(ওভেন) ময়েসচার টেস্টার ১,টুইস্ট মেট্রি ১ এনওএস মেশিনারীজ ছাড়াও কোটি কোটি টাকা মূল্যের মেশিনারীজ রয়েছে।এ.আর.এ জুট মিলটি ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডিং কোম্পানি (পাকিস্তান) লিঃ ভোগদখল থাকা অবস্থায় বিগত ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের সময় উক্ত ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডিং কোম্পানি পাকিস্তান লিঃ পাকিস্তান ত্যাগ করে ভারতে চলে যায়,তদ অবস্তায় উল্লেখিত ভূমি সহ বিগত ০১-১১-১৯৬৬ সালে এস আরও নং ১০৪৬ (চক)/৬৬ মোতাবেক তৎকালীন পাকিস্তান সরকার গেজেট মূলে শত্রু সম্পত্তি আওতাভুক্ত করেন। এর পর বাংলাদেশ সরকার উক্ত ভূমি সহ অপরাপর ১৪ টি কোম্পানি বিগত ১০-৭-৭৩ তারিখে পত্র নং আই.এম ৪৩৬/৭৩ এ ২/৩১ মোতাবেক ট্রেড ট্রেডিং করপোরেশন লিঃ ঢাকা বরাবরে হস্তান্তর বিক্রয় করেন।উক্ত ট্রেডিং কর্পোরেশন লিমিটেড ভোগদখল থাকা অবস্থায় বিগত ৩০/০১/৮১ তারিখে প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে মেসার্স এ.আর.এ জুট মিলস লিমিটেড এর নিকট ২৬,০৪,২০০ টাকার বিনিময়ে ৩০৭৮ দলিল মূলে হস্তান্তর করেন। উক্ত নিলামের শর্ত থাকে যে,উক্ত সম্পত্তি শিল্প কারখানার বিকাশ সম্প্রসারণ ছাড়া বিক্রয়,হস্তান্তর কিংবা বিলুপ্ত করা যাবে না। উল্লেখ থাকে যে, ট্রেডিং কর্পোরেশন লিমিটেড বিক্রয় করা হয় প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে।একই সম্পত্তি প্রকাশ্য নিলামের মাধ্যমে বিক্রয় না করে রাতের আধারে সরিষাবাড়ী সাব রেজিস্ট্রি অফিস আওতাবিহীন ক্ষমতাবলে কর্তৃত্ববিহীন দাতার দাখিলি দলিলাদি সরিষাবাড়ী সাব-রেজিস্ট্রার দূর্নীতিমূলক ক্ষমতার অপব্যবহারক্রমে রেজিস্ট্রির জন্য গ্রহণ করেন। আরও উল্লেখ থাকে যে, বিগত ২৪/০৩/২০২১ ইং তারিখে রাত্রী ১০:৪৫ টার সময় সরিষাবাড়ী এ.আর.এ জুটমিলস লিঃ টি ১ হাজার কোটি টাকার সম্পদ,স্থাপনা,কারখানা ও ভূমি কর্তৃত্ব বিহীনভাবে জনৈক আনোয়ার বছির খান,পিতা মৃত আজাহার আলী খান,মাতাঃমিসেস রুমানা বেগম,সাং- শিমলা বাজার,সরিষাবাড়ী,জামালপুর বিক্রয়/হস্তান্তর করেছেন।উক্ত বিক্রয় প্রক্রিয়া সরিষাবাড়ী সাব-রেজিস্ট্রার বিলকিস আরা,অফিস সহকারী প্রধান মোঃমোস্তাফিজুর রহমান মুসা প্রত্যক্ষভাবে সম্পৃক্ত থাকেন। উক্ত কর্মকর্তা/কর্মচারীর সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ যোগসাজসে এবং সহযোগীতায় সরিষাবাড়ী সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের ভাই-ভাই সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেটের সদস্য কামাল হোসেন (সনদ নং-৪১),এসআর অফিস সরিষাবাড়ী,শাহজাহান আলী তালুকদার (সনদ নং-৫৮),ফারুক হোসেন (সনদ নং-৮৭),আলমগীর হোসেন (সনদ নং-৫৬) এসআর অফিস সরিষাবাড়ী ব্যক্তিগণ উক্ত মিলটি দলিল নং-১৯১৩,১৯১৪,১৯১৫,১৯১৬,১৯১৭,১৯১৮,১৯১৯ এর মাধ্যমে বিক্রয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি ১৫ কোটি টাকার মূল্য প্রদশির্ত হয়েছে। উক্ত কারণে বাংলাদেশ সরকার অর্থাৎ জনগণ প্রায় ১শ কোটি টাকার রাজস্ব প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছে। প্রকাশ্য নিলামে হস্তান্তর দলিল এবং রাতের আধারে হস্তান্তর দলিল টালি করলেই এতে বর্ণিত স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির উপস্থিতি অনুপস্থিতি ধরা পড়বে বলে এলাকাবাসী জানায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.