বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

নাগরপুরের ভাড়রায় জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর পক্ষে ব‍্যাপক প্রচারণা

আলিজা বিনতে আশরাফ, নির্বাহী সম্পাদক : আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘদিন যাবত সক্রিয়ভাবে মাঠে রয়েছেন দক্ষিণ টাঙ্গাইলের গর্ব, নাগরপুর দেলদুয়ারের গণমানুষের নেতা, সময়ের সাহসী সন্তান, তৃণমূলের প্রাণের স্পন্দন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির অন্যতম সদস্য, টাঙ্গাইল জেলা আ’লীগের নবনির্বাচিত সহ-সভাপতি জননেতা তারেক শামস্ খান হিমু

বিশেষভাবে উল্লেখ্য তিনি দীর্ঘ ২৬ বছর যাবৎ সরাসরি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থেকে প্রথমে নাগরপুর পরবর্তীতে দেলদুয়ারের মানুষের বিভিন্ন দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছেন।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে দীর্ঘদিন যাবত তিনি স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে টাংগাইল-৬ আসনের নাগরপুর দেলদুয়ারে ধারাবাহিকভাবে ব্যাপক প্রচারণা করে আসছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় ১৬ই জুলাই’২৩ রোজ রবিবার জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর পক্ষে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃবৃন্দদের ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা এবং উৎসবমুখর পরিবেশে  নাগরপুর উপজেলার ভাড়রা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে উপস্থিত স্থানীয় জনগণের মাঝে ব্যাপক প্রচারণা করা হয় এবং গুরুত্বপূর্ণ স্থানে “ভোটকেন্দ্রে যান, ভোট দিন এলাকার সন্তানকে” এই স্লোগান সম্বলিত লিফলেট স্থাপন করা হয়।

এর মধ্যে ভাড়রা সদর, আড়রা, ও সলিল গ্রামের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে এই প্রচারণা করা হয়।

এছাড়া চলমান প্রত্যেকটি অটোরিকশা, অটো ও সিএনজি এবং প্রত্যেকটি দোকানের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ব্যাপক সংখ্যক স্টিকার স্থাপন করা হয়।

উক্ত প্রচারণায় স্হানীয় আওয়ামীলীগ, শ্রমিকলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃবৃন্দ সহ স্থানীয় জনগণ একযোগে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন। এতে করে স্থানীয় সাধারণ মানুষের মধ্যে এক উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে

এ বিষয়ে জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর সাথে এক তারবার্তায় গণমাধ্যমের কথা হয়।

তিনি গণমাধ্যমকে জানান- নানা রকম বাধাবিঘ্ন ও প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের সারা দেশব্যাপী ব্যাপক উন্নয়নের কথা তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে আমাদের এই ধারাবাহিক প্রচারণা যা আগামী নির্বাচন পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার লক্ষ্যে জনমত সৃষ্টি করাই হচ্ছে এই প্রচারণার মূল উদ্দেশ্য।

ইনশাআল্লাহ্ আশা রাখি আগামীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশে স্মার্ট প্রচারণায় নাগরপুর দেলদুয়ার তথা সারা বাংলাদেশে আমরাই একমাত্র ইতিহাস সৃষ্টি করতে যাচ্ছি।