মির্জাপুরে রাতের আঁধারে সরকারি খাস পুকুর ভরাট

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে সাবেক বিএনপি নেতা ফিরোজ হায়দার খান রাতের আঁধারে সরকারি খাস পুকুর ভরাট করছিল। কিন্তু উপজেলা প্রশাসন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে আজ শনিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আবদুল মালেক ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) মোঃ জুবায়ের হোসেন সরকারি খাস পুকুর ভরাটের কাজ বন্ধ করে দেন। উপজেলা ভুমি অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গোড়াই মমিননগর এলাকায় খতিয়ান নং-ইজা-১(৩০৯), দাগ নং- ২৮৬১, শ্রেণি পুকুর ও জমির পরিমাণ ০.৮৪ একর ভূমি নিয়ে মহামান্য হাইকোর্ট ৫৭৯১/২০১০নং রীট পিটিশন মোকদ্দমা চলমান আছে। মোকদ্দমা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তফসিল বর্ণিত ভূমির শ্রেণি পরিবর্তন, অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ ও অনুপ্রবেশ নিষেধ।

একজন স্থানীয় এক ব্যক্তি (নাম প্রকাশ না করা শর্তে) বলেন,ফিরোজ হায়দার দুষ্টু প্রকৃতির লোক, সে স্থানীয় প্রশাসন, আদালতের রায় তোয়াক্কা না করে রাতের আধারে সরকারি পুকুর ভরাট করছে। সাধারণ জনগন ভয়ে মুখ খুলছে না,বিএনপন্থী লোক হয়েও কিভাবে এত সাহস পায় তা আমাদের বোধগম্য নয়।বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় জনগনের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে যেকোন সময় বড়ধরনের ঝামেলা হতে পারে।উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ চাচ্ছি।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ জুবায়ের হোসেন বলেন, আমরা সরকারি স্বার্থ দেখার জন্য সবসময় সোচ্চার। যদি কোন ব্যক্তি অবৈধ ভাবে সরকারি খাস জমি দখল করতে চাই তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এ অভিযান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবদুল মালেক বলেন, আমরা খবর পেয়ে পুকুর ভরাটের কাজ বন্ধ করি। সরকারি খাস পুকুর ভরাট করে কেউ যেন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ ও অনুপ্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসন সতর্ক রয়েছে।