বৃহস্পতিবার, ১৫ অক্টোবর ২০২০, ৩০ আশ্বিন ১৪২৭

মারা গেলেন ‘ট্যাক্সি ড্রাইভার’-খ্যাত চিত্রগ্রাহক মাইকেল চ্যাপম্যান

নিজস্ব সংবাদদাতা : হলিউডের নামজাদা চিত্রগ্রাহক মাইকেল চ্যাপম্যান আর নেই। মার্টিন স্করসেজি পরিচালিত ট্যাক্সি ড্রাইভার, রেজিং বুল ও দ্য লাস্ট ওয়াল্টজের এই চিত্রগ্রাহক রবিবার কনজেস্টিভ হার্ট ফেইলিওরে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

চ্যাপম্যানের স্ত্রী চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক এমি হোলডেন জোনস ফেইসবুকে মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি লেখেন, “মাইকেল চ্যাপম্যান, আমার পুরো প্রাপ্তবয়স্ক জীবনের ভালোবাসা চলে গেলেন। যত দিন না আবার আমাদের দেখা হয়।”

চ্যাপম্যান স্বতন্ত্র চিত্রগ্রহণের জন্য আলাদা স্থান করে নিয়েছিলেন হলিউডে। দুইবার অস্কার মনোনয়নও পান তিনি। ‘রেজিং বুল’-এর সাদাকালো চিত্রধারণ ও ‘দ্য ফিউজিটিভ’র জন্য এই স্বীকৃতি জুটে। ‘ট্যাক্সি ড্রাইভার’-এর পর তিনি ‘ফুটপাতের কবি’ উপমা পান।

গর্ডন উইলিসের শিষ্য হয়ে চ্যাপম্যান চিত্রগ্রাহক হয়ে ওঠেন। তার সঙ্গে ক্যামেরা অপারেটর হিসেবে কাজ করেন হ্যাল অ্যাশবির ‘দ্য ল্যান্ডলর্ড’-এ। পরে দ্য গডফাদার, আপ দ্য স্যান্ডবক্স ও ক্লুল সিনেমা কাজ করেন। তবে পরিপূর্ণ চিত্রগ্রাহক হিসেবে অভিষেক হয় অ্যাশবির ‘দ্য লাস্ট ডেভিল’ সিনেমার মাধ্যমে, যেখানে নায়ক ছিলেন বিখ্যাত জ্যাক নিকোলসন।

এ ছাড়া করেন ডেড ম্যান ডোন্ট ওয়ার প্লিড, স্পেস জ্যাম, কিন্ডারগার্টেন কপ, দ্য লস্ট বয়েস ও ঘোস্টবাস্টার্স টুসহ অনেক সিনেমায়।

১৯৮০ এর  দশকে পরিচালক হিসেবে চ্যাপম্যানের অভিষেক হয়। চারটি সিনেমার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ‘ক্ল্যান অব দ্য কেভ বিয়ার’ ও ‘অল দ্য রাইট মুভস’। এর মধ্যে দ্বিতীয় ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তরুণ টম ক্রুজ।

মাইকেল চ্যাপম্যান ১৯৩৫ সালের ২১ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন নিউইয়র্কে। তিনি আমেরিকান সোসাইটি অব সিনেমাটোগ্রাফার্স থেকে আজীবন সম্মাননা লাভ করেছেন। পেয়েছেন আরও অনেক সম্মাননা।

স্ত্রী ছাড়াও চার সন্তান এবং চার নাতি-নাতনি রেখে গেছেন মাইকেল চ্যাপম্যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *